আদালতে যাবেন হিরো আলম

প্রকাশিত: ৭:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩

আদালতে যাবেন হিরো আলম

ডেস্ক রিপোর্ট: আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম বলেছেন, বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হলেও আমাকে অন্যায়ভাবে পরাজিত ঘোষণা করা হয়েছে। তাই আমি এ ফলাফল বর্জন করছি। শিগগিরই আদালতের আশ্রয় নেব।

 

বুধবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বগুড়া সদর উপজেলার এরুলিয়া গ্রামে নিজ বাড়িতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

 

হিরো আলম বলেন, আজকে সারা দেশের মানুষ আমার দিকে তাকিয়ে ছিলেন। আমার মনে হয়েছে আমি প্রধানমন্ত্রীর ভোট করছি। তখন গর্বে আমার বুক ভরে গেছে। সবার যে ভালোবাসা পেয়েছি তা ভুলবার নয়।

 

আলোচিত ইউটিউবার হিরো আলম বলেন, নির্বাচনের পরিবেশ ভালো ছিল। তবে নন্দীগ্রামের ফলাফল ঘোষণা করার সময় তার সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে। ৪৯টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩৯টির ফলাফল ঘোষণা করা হয়। পরে বাকি ১০ কেন্দ্রের ফলাফল আলাদা ঘোষণা না করে মোট ফলাফল ঘোষণা করেছে।

 

তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, কেন ওই ১০ কেন্দ্রের ফলাফল একসঙ্গে ঘোষণা করা হলো? এখানেই কারচুপি করা হয়েছে। সব বুথে এজেন্ট থাকলেও প্রিসাইডিং অফিসার তাদের ফলাফলের কপি দেননি।

 

এই নির্বাচনের ফলাফল থেকে শিক্ষা নিয়ে আগামী ২০২৪ সালের জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবেন কিনা- এমন প্রশ্নের উত্তরে হিরো আলম বলেন, এমন কারচুপির ভোট হলে ভবিষ্যতে মানুষ নির্বাচন করার ইচ্ছা হারিয়ে ফেলবেন।

 

দুটি আসনে নির্বাচন না করে শুধু বগুড়া-৪ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে প্রচারণা বেশি চালাতে পারতেন কিনা? এমন প্রশ্নের উত্তরে হিরো আলম বলেন, তিনি দুটি আসনের অধিকাংশ ভোটারের কাছে গিয়েছেন; যা অন্য প্রার্থীরা পারেননি। হিরো আলম বিপুল পরিমাণ ভোট পাওয়ার জন্য ভোটার ও বিশেষ করে মিডিয়াকর্মীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বলেন, আপনাদের ভালোবাসা ও সহযোগিতা না পেলে আজ এ পর্যায়ে আসতে পারতাম না।

 

এদিকে দিনভর ইভিএমে ভোটগ্রহণ শেষে রাত সাড়ে ৮টার দিকে রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক সাইফুল ইসলাম নিজ কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

 

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের প্রার্থী জেলা জাসদের সহ-সভাপতি একেএম রেজাউল করিম তানসেন বিজয়ী হয়েছেন। ১১২ কেন্দ্রে তিনি পেয়েছেন ২০ হাজার ৪০৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আশরাফুল ইসলাম আলম ওরফে হিরো আলম পেয়েছেন ১৯ হাজার ৫৭১ ভোট। নির্বাচনে মোট নয়জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তিন লাখ ২৮ হাজার ৪৬৯ জন ভোটারের মধ্যে ৭৮ হাজার ৫৭০ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। ভোট সংগ্রহের হার ২৩ দশমিক ৯২ শতাংশ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ