গোয়াইনঘাটে ছাত্রের উপর শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতন

প্রকাশিত: ৫:০৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০২৩

গোয়াইনঘাটে ছাত্রের উপর শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতন

নিজস্ব সংবাদদাতা: সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলার আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ও শিশুশিল্পী আহমদ আল নাফিসের উপর ইংরেজি শিক্ষক আব্দুস শুকুর কর্তৃক রোলকলে সাড়া না দেওয়ার কারণে বাঁশের কঞ্চি দিয়ে ক্লাসে উপর্যুপরি বেত্রাঘাত ও কানধরে ওঠবস করিয়ে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

 

গতকাল সোমবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেলে গোয়াইনঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা গ্রহণকালে সাংবাদিকদের কাছে তার পরিবারের পক্ষ থেকে এমন অভিযোগ করা হয়। ওই শিক্ষার্থী উপজেলার পূর্ব আলীরগাঁও ইউপির আটলিহাই গ্রামের মফিজুর রহমানের ছেলে।

 

এঘটনার ওই দিন সন্ধ্যায় শিক্ষার্থী নাফিসের মা সাহেদা বেগম বাদী হয়ে গোয়াইনঘাট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

 

শিক্ষার্থী নাফিস জানায়- দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ক্লাসে প্রেজেন্টেশনে সাড়া দেওয়ার পরও স্যার আমাকে বাঁশের কঞ্চি দিয়ে উপর্যুপরি পিটিয়েছন, কানধরে ওঠবস করিয়েছেন, দেড়টায় ছুটি হলেও ক্লাসে আটকে রাখেন তিনি। পরে আমি ২টার দিকে বাড়িতে ফিরি।

 

অভিযোগের বিষয়ে স্কুল শিক্ষক আব্দুস শুকুর সত্যতা স্বীকার করে বলেন- সে একটু বেয়াদবি করে প্রেজেন্টেশনের সময় প্রেজেন্ট দেই নাই। আমিও তার উপর একটু বেশি করে ফেলছি। তাই আমি তার মায়ের সাথেও কথা বলেছি।

 

জানতে চাইলে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য শরিফ উদ্দীন বলেন- আমরা এই বিষয়টি নিয়ে আইনি প্রক্রিয়ায় লড়বো। প্রতিবছর এরকম তিন-চারটি ঘটনা ঘটলেও ভয়ে কেউ কথা বলতে চায় না।

 

আলীরগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সিতাংশ মোহন দেব বলেন- আমরা এই বিষয়টি নিয়ে সমাধানের জন্য বৈঠকে রয়েছি।

 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার রমা কান্ত দে বলেন- এই ব্যাপারে আমরা কিছুই জানি না। আপনার কাছ থেকে শুনলাম।

 

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট থানার (ওসি তদন্ত) মেহেদী হাসান সুমন- ছাত্রের মায়ের দাখিলকৃত অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি সাংবাদিকের নিশ্চিত করেছেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ