সিলেটে লেগুনা স্ট্যান্ড দখলে মরিয়া মালিক সমিতি : চালক শ্রমিক ও মালিক সমিতির মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

প্রকাশিত: ৬:০৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২২

সিলেটে লেগুনা স্ট্যান্ড দখলে মরিয়া মালিক সমিতি : চালক শ্রমিক ও মালিক সমিতির মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

নিজস্ব ডেস্ক : সিলেট নগরীতে লেগুনার অবৈধ মালিক সমিতি ও চালক-শ্রমিকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। ভূয়া মালিক সমিতির আবিস্কার নতুন একটি পুলিশ টোকনের মাধ্যমে চাঁদাবাজি ও স্ট্যান্ড দখলকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুর দেড়টার দিকে নগরীর ধোপাদিঘিরপাড়স্থ ওসমানী শিশু উদ্যানের সামনে এ সংঘর্ষ হয়। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ভূয়া মালিক সমিতির দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে জানা গেছে- ওসমানী শিশু উদ্যানের সামনের ভূয়া মালিক সমিতির আবিস্কার নতুন একটি পুলিশ টোকনের মাধ্যমে চাঁদাবাজি ও স্ট্যান্ড দখলকে নিয়ে লেগুনা চালক শ্রমিকদের সঙ্গে ভূয়া মালিক সমিতির একটি পক্ষের দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছে। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয় এবং দুপুর দেড়টার দিকে লাঠিসোটা নিয়ে দুপক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

আরো জানা গেছে- কথিত মালিক সমিতি-০১৩ এর ভূঁইফোড় নেতা জৈন্তাপুর থানার কহাইগড় এলাকার মৃত আব্দুল হামিদ মনাফের পুত্র মোঃ শাহাব উদ্দিন, শাহপরান (রহ.) থানাধীন নোওয়া গাঁও এলাকার মোঃ আব্দুল মনাফের দুই পুত্র মোঃ দুলাল আহমদ উরফে (স্কিন দুলাল), তার ভাই হেলাল আহমেদ, জৈন্তাপুর থানার ঠাকুরের মাটি এলাকার মৃত আব্দুল খালিকের পুত্র আব্দুল আহাদ, একই এলাকার কালা মিয়ার পুত্র মোঃ নিজাম উদ্দিন ও একই থানার কহাইগড় এলাকার মাহমদ আলীর পুত্র মোঃ এমরান আহমদের নেতৃত্বে প্রায় ২শ” থেকে আড়াই শ” জন লোক তাদের ফায়দা হাসিলের উদ্দেশ্যে নিরীহ চালক শ্রমিকদের উপর এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ প্রকাশ করেছেন শ্রমিকরা। প্রায় আধাঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষকালে দুপক্ষের লোকজন পরষ্পরের দিকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেন। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ আহত হন। এ সময় ভূয়া মালিক সমিতির লোকেরা বেশ কয়েকটি গাড়ির গ্লাসও ভাঙচুর করে বলেও অভিযোগ প্রকাশ।

খবর পেয়ে সোবহানীঘাট ফাঁড়ির একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ পিপিএম-এর নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সেখানে যায়।

আজবাহার আলী শেখ সাংবাদিকদের বলেন- কী নিয়ে সংঘর্ষ এখনও স্পষ্ট নয়। তবে শুনা যাচ্ছে- স্ট্যান্ড দখল নিয়ে দুপক্ষের দীর্ধদিনের বিরোধ রয়েছে।

তিনি আরো জানান, আজ সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছেন এবং দুজনকে আটক করা হয়েছে। সংঘর্ষের পরে ওসমানী শিশু উদ্যানের সামনের লেগুনা স্ট্যান্ডটি উচ্ছেদ করেছে পুলিশ। দুপক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলছে। তবে কোনো পক্ষ লিখিত অভিযোগ দিলে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ